চরম বাংলা জোকস এসএমএস

image_pdf

1

১০০ টাকা ফী
এক জ্যোতিষী বিভিন্ন সমস্যায় মানুষকে নানা পরামর্শ দিয়ে থাকেন।
একটি সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে বসে আছেন তিনি।
তাতে লেখা- ‘তিনটি প্রশ্নের ফি একশত টাকা’।
আগন্তুক : আপনি কি জ্যোতিষী, মানুষকে বিভিন্ন
সমস্যার পরামর্শ দিয়ে থাকেন?

জ্যোতিষ্ক : হ্যাঁ
আগন্তুক : মাত্র তিনটি প্রশ্নের জন্য একশত টাকা ফি?
জ্যোতিষ্ক : হ্যাঁ
আগন্তুক : ফি টা একটু বেশি বেশি লাগছে না?
জ্যোতিস্ক : হ্যাঁ, ফি-টা একটু বেশিই,
আপনার তিনটি প্রশ্নই শেষ। তাড়াতাড়ি একশত টাকা দিন।


2

হাবলু নতুন টেলিভিশন কিনছে। বাড়ি ফিরেই সে টেলিভিশনটা
এক ড্রাম পানির ভেতর ডুবিয়ে দিল। ঘটনা দেখে ছুটে এলেন এক প্রতিবেশী।

প্রতিবেশী: আরে, করছেন কী, করছেন কী?
হাবলু: হে হে, আর বলবেন না। নতুন টিভি কিনলাম।
দোকানদার বলল, রঙিন টিভি! ভাবলাম, ব্যাটা ঠকিয়ে দিল কি না, তাই
পানিতে ডুবিয়ে দেখছিলাম, রং উঠে যায় কি না!


3

ইন্টারভিউ
ইন্টারভিউ বোর্ডে এক যুবককে প্রশ্ন করা হলো, বল তো

“ডাক্তার আসিবার পূর্বে রোগী মারা গেল” এর ইংরেজি কি হবে?
এটার ইংরেজি পারি না স্যার | আরবিটা পারি |
আরবিটা পার � ঠিক আছে বল |
ইন্নালিল্লাহ ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজিউন


4

ইন্টারভিউ বোর্ডে বল্টুকে প্রশ্ন করলেন এক
প্রশ্নকর্তা, – “কল্পনা করো তো, তুমি একটা ২০ তলা
বাড়ির ১৫ তলায় আছ। এমন সময় ভীষণ আগুন লেগে
গেল। সবাই ছোটাছুটি শুরু করল। তুমি কী করবে?”
বল্টুঃ আমি কল্পনা করা বন্ধ করে দেব!


5

এক লোক একদিন পথে টাকা
ভর্তি একটি মানি ব্যাগ পেলো
তো সে রেডিও সঙ্গিকে কল দিলো..
হ্যালো এটা কী রেডিও সঙ্গি??
আরজে- হ্যা বলুন??
আমি একটা টাকা ভর্তি মানিব্যাগ
পাইছি…
আরজে- তো আপনি কি মানিব্যাগ
টি ফেরত দিতে চান??
না আমি তো যার মানিব্যাগ
টা হারিয়ে গেছে তার জন্য
একটি Sad song এর
রিকুয়েস্ট করতে চাইছিলাম..


6

দুই বন্ধুর সাথে কথা হচ্ছে
১ম বন্ধু :কিরে তোর ব্যবসা কেমন চলছে।
২য় বন্ধু :ব্যবসা তো পা থেকে মাথায় উঠছে।
১ম বন্ধু :মানে?
২য় বন্ধু :আরে বুঝলিনা আগে করতাম
জুতার ব্যবসা এখন করি টুপির ব্যবসা।


7

দাঁতের ডাক্তারের কাছে এক মেয়ে এসে বলল-
মেয়ে : ডাক্তার সাহেব, আপনি দাঁত তুলতে পারেন?
ডাক্তার : হ্যাঁ, পারি।
মেয়ে : তাহলে যে আমার সঙ্গে আমাদের বাড়ি যেতে হবে।
আমার দাদির দাঁত তুলতে হবে।
ডাক্তার : তা যাওয়া যাবে। ফি কিন্তু ডাবল দিতে হবে।
মেয়ে : সেটা সমস্যা না, চলেন আমার সঙ্গে।

ডাক্তার মেয়েটার বাড়ি গেল। সেখানে গিয়ে মেয়েটার দাদিকে বলল-
ডাক্তার : দেখি, আপনার কোন দাঁত তুলতে হবে?
দাদি : আমার সঙ্গে একটু কষ্ট করে পুকুরপাড়ে চলেন।
পুকুরপাড়ে গিয়ে দাদি বললেন, আজ গোসল করতে গিয়ে পুকুরে দাঁত পড়ে গেছে। আপনি কষ্ট করে তুলে দেন!


8

এক কৃপন লোক কোন এক পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেখল যে, এক মুমূর্ষ রোগীর জন্য রক্তের প্রয়োজন। তার গ্রুপের সাথে মিল থাকায়
,সে পত্রিকায় দেয়া ঠিকানা মত ঐ রোগীর সাথে যোগাযোগ করল। ।
তো ঐ কৃপন লোক সেই রোগীকে ১ ব্যাগ রক্ত দিল।
রোগী ভদ্রলোক সুস্থ্য হয়ে কৃপন লোকটিকে ১ লাখ টাকা দিল।
এর কয়েক মাস পর ঐ রোগীর আবার রক্তের প্রয়োজন হওয়ায়,

সে সেই কৃপন লোকটিকে খবর দিল।
কৃপন লোকটি আরো ১ লাখ টাকার লোভে আবার ১ ব্যাগ রক্ত দিল।
রক্ত দেয়ার পরে রোগী ভদ্রলোক তাকে ১০০ টাকার ১ টি নোট দিল। কৃপন লোকটি তাকে বললো,
ভাই এর আগে রক্ত দেয়ার পর আমাকে ১ লাখ টাকা দিয়েছিলেন, আজ ১০০ টাকা কেনো ?
উত্তরে লোকটি বললো, কি করবো ভাই, আমার শরীরে যে কৃপনের রক্ত ঢুকে গেছে


9

কৃপণ এক লোক লটারিতে গাড়ি পেয়ে গেল। বন্ধুরা ছুটে এলো তাকে অভিনন্দন জানাতে,
কিন্তু সে মুখ গোমড়া করে বসে রইল।
বন্ধুরাঃ কী ব্যাপার, লটারিতে গাড়ি পেয়েও তুমি মনমরা হয়ে বসে আছ কেন?
কৃপণ লোকঃ একটা বোকামি করে ফেলেছি, খামাখাই দুটো টিকিট কিনেছিলাম।

একটা কিনলেই তো হতো।………………..


10


11

অনেক দিন পর দুই বন্ধুর দেখা। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে গল্পের এক ফাঁকে
একজন আরেক জনকে বর্তমানে চাকরি কার কেমন চলছে জিজ্ঞেস করতেই –
প্রথম বন্ধু : আজই চাকরিতে ইস্তফা দিয়ে এলাম।
দ্বিতীয় বন্ধু : কেন? এ কী বলিস তুই? কী হয়েছিল মালিকের সঙ্গে?
প্রথম বন্ধু : আর বলিস না, কোম্পানির এমডি ডেকে নিয়ে যা বললেন, তাতে আর ওই অফিসে কাজ করা যায় না।
দ্বিতীয় বন্ধু : অত সেন্টিমেন্টাল হোস কেন রে? চাকরি করতে গেলে বসদের একটু-আকটু কথা শুনতেই হয়।
বল তো এমডি তোকে কী বলেছেন?
প্রথম বন্ধু : একটি পত্র হাতে ধরিয়ে দিয়ে বললেন, এ মুহূর্তে তোমাকে বরখাস্ত করলাম।


12

ছেলে ও বাবার মধ্যে কথা হচ্ছেঃ
ছেলেঃ বাবা টাকা দাও। একটা মোবাইল কিনব।
বাবাঃ মোবাইল কিনবি? তোরে না দুই মাস আগেই ১০ হাজার টাকা দিলাম নতুন মোবাইলের লাইগা!
ছেলেঃ হে দিছ, কিন্তু এবার একটা থ্রিজি মোবাইল কিনব।
বাবাঃ থ্রিজি মোবাইল! সেইডা আবার কী?
ছেলেঃ থ্রিজি কী জানো না? থ্রিজি হলো থার্ড জেনারেশন মোবাইল ফোন।
বাবাঃ কী কইলি? তোর এত অধঃপতন! আমার কি টাকার অভাব?
তোরে আমি কুনো দিন সেকেন্ড হ্যান্ড জিনিস কিইনা দিইনি, আর আমার পোলা হইয়া সেই তুই কিনবি থার্ড হ্যান্ড মোবাইল


13

এক কবুতর একটু নিচু হয়ে উড়ছিল…হঠাৎ এক গাড়ির সাথে ধাক্কা খেয়ে অজ্ঞান হয়ে গেলো। এক লোক তাকে নিয়ে গিয়ে খাঁচায় রাখল।
যখন কবুতরের জ্ঞান ফিরল, তখন সে খাঁচার ভিতর নিজেকে দেখে বলল,
“হায় আল্লাহ! আমি জেলে! গাড়িওয়ালা কি মারা গেছে নাকি.?


14

গ্রামের এক কৃষক
গেছে শহরে বেড়াতে ।
শহরের বড় বড়
বিল্ডিং দেখে সে তাজ্জব
হয়ে গেছে ।তাই
সে একটা বিল্ডিং এর
তলা গুনতে শুরু করল ।
হঠাত্ একটা চিটার
এসে বলছে,শহরের
বিল্ডিং এর
তলা গুনলে তলা প্রতি ১
টাকা দিতে হয় ।
তাড়াতাড়ি টাকা বের কর ।
গ্রামের লোকটা ১৩
টাকা দিয়ে বলল,আমিও
কম চালাক
না, গুনেছি ১৮
তলা আর দিছি ১৩ টাকা ।


15

একবার কালু আর লালু
দুজনে এক দোকানে গেল.
দোকানে সবাইকে কাজে ব্যাস্ত
দেখে কালু ৩টে চকলেট
পকেটে পুরে নিলো।
দোকানের
বাইরে এসে
কালুঃ দেখলি তো…আমি ৩টে
চকলেট তুলে নিলাম,
অথচ কেউ কিছু বুঝতেই
পারলো না।তুই কখনই
এটা করতে পারবি না।
এটা শুনে লালু খুব রেগে গিয়ে
বললঃ চল, আমি এর
থেকে কিছু
বেশি তোকে দেখাচ্ছি।
তারা দুজনে আবার
দোকানে গেল,
এবং লালু

দোকানদারকে বললঃ আঙ্কেল,
আপনি কি একটা জাদু দেখবেন?
দোকানদারঃ ঠিক
আছে দেখাও।
লালুঃ তাহলে এরজন্য
আমাকে ১টা চকলেট দিন।
দোকানদার লালুকে ১টা চকলেট দিল।
লালু সেটা খেয়ে নিয়ে আর ১টা চাইলো।
দোকানদার আবার১টা দিল।
লালু সেটা খেয়ে নিয়ে আবার ১টা চকলেট চাইলো।
দোকানদার এবারও তাকে চকলেট
দিতেই লালু সেটাও খেয়ে ফেললো।
দোকানদারঃ আরে বাছা, এতে
তোর জাদুটা কোথায় ??
লালুঃ উং…চুং…মুং. ….
এবার, আমার বন্ধুর পকেট
চেক করুণ,
আপনার ৩টে চকলেট
ফেরত পেয়ে যাবেন….।।


16

ছেলেঃ ইশ!কেন যে আপেলের সাইজ তরমুজের সমান হল না!
বাবাঃকেন রে?
ছেলেঃমাধ্যাকর্ষণ শক্তির সূত্রটা মুখস্ত হচ্ছে না !


17

একবার রাজা মশাই শক্ত করে গোপাল ভাঁড়ের হাত আঁকড়ে ধরে বললেন, কী গোপাল,
বুদ্ধির জোরে কি আর সব হয়? মাঝে গায়ের জোরও লাগে।
পারলে হাতখানা ছোটাও দেখি বাপু। দেখি, কেমন তোমার শক্তি!রাজা ভেবেছিলেন, গোপাল ভাঁড়
হয়তো হাত ধরে টানাহেঁচড়া করবে, মোচড়ামুচড়ি করবে।
রাজাকে অবাক করে দিয়ে সে এসবের কিছুই করল না! শুধু
বিড়বিড় করে রাম রাম বলতে লাগল।
রাজা মশাই: কী হলো, অত রাম রাম করছ কেন?
গোপাল বলল, রাজা মশাই, গুরুজনের মুখে শুনেছি, রামনাম জপলে ভূত ছাড়ে!
রাজা সঙ্গে সঙ্গে গোপালের হাত ছেড়ে দিলেন!


18

বিচারকঃ গাড়িটা কিভাবে চুরি করলে বল ?
অভিযুক্তঃ আমি চুরি করিনি হুজুর! গাড়িটা কবরস্থানের সামনে দাঁড়িয়েছিল কি না।
তাই ভাবলাম মালিক বোধহয় মারা গেছে, তার আর গাড়ির দরকার নেই।

 


19

১ম-ফকিরঃ আইজকা মতিঝিলে একখান১০০ টাকার নোট কুড়ায়ে পাইছিলাম.
২য়-ফকিরঃ কস কি..??তোর দেখি বিরাট ভাইগ্য!
১ম-ফকিরঃ আরে না,নোট খান জাল আছিল, তাই ফালাইয়া দিছি!
২য়-ফকিরঃ জাল আছিল ক্যামনে বুঝলি?
১ম ফকিরঃ তুই কোনোদিন ১০০টাকার নোটে ১এর পরে তিনটা শূন্য দেখছস?


20

ঢাকা নিউইয়র্ক বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট চলছে। এক
ভদ্রলোক টয়লেটে গেলেন। গিয়ে দেখেন আরেকজন
কমোডে বসে আছেন। কিছুক্ষন বাদে আবার গেলেন। দেখেন
সেই লোক বসে আছেন। তৃতীয় বারও একই অবস্থা। ভদ্রলোক
বিরক্ত হয়ে বিমানের ক্রুকে বললেন, ” এক জনই যদি এতক্ষন
ধরে বাথরুম করে অন্যরা কখন যাবে?”
ও, উনার কথা বলছেন? উনি তো উঠবেন না,
এ ফ্লাইটে খুব
ভিড় তো, তাই ওটাই উনার সিট!”


21

এক পাগল খুব মনোযোগ দিয়ে চিঠি লিখছে। তো সে সময় আরেকজন এসে তাকে জিজ্ঞেস করলো,
‘চিঠি লেখ? কাকে!
“নিজেকেই লিখি।” তখন লোকটা আবার বলল,“নিজেকে কি লেখ?”
পাগলটা বললো,“আরে!
আগে তো চিঠিটা আমার কাছে আসুক, তারপর পড়ে দেখি, তারপরনা জানাবো!


22

অ্যাম্বুলেন্স
সাদা হয় কেন ?
ছাত্রের উত্তর – অ্যাম্বুলেন্স…এ
অক্সিজেন সিলিন্ডার
থাকে আর অক্সিজেন
একটা গ্যাস|
গ্যাস রান্নার
কাজে ব্যবহার হয় আর খাবার
ভিটামিন এর উৎস|
আমরা সূর্য থেকে ভিটামিন Dপাই
আর সূর্য আলো দেয়|
আলো বাল্ব
থেকে আসে আর ক্রিসমাস
ট্রি তে ছোট
বাল্ব লাগান হয়!
ক্রিসমাস মানে গিফট আর
সান্তা গিফট নিয়ে আসে…
সান্তা দক্ষিন
মেরুতে থাকে আর
ওইখানের মেরুতে ভাল্লুক থাকে!
ওই মেরুর ভাল্লুক সাদা আর এই জন্য
অ্যাম্বুলেন্স ও সাদা ! !


23

বিমানে স্থান বুঝা
৩ জন আবহাওয়াবিদ
বিমানে চড়ে ঘুরতে বেরিয়েছে।
১ম জনঃ আমি বিমানের
জানালা দিয়ে হাত বের
করেই বুঝলাম এটা সুইজারল্যান্ড।
কারণ,সুইজারল্যান্ডের ঠান্ডা বাতাস
আমি ভালোভাবেই চিনি।
একটু পরে
২য় জন বললঃ আমি বিমানের
জানালা দিয়ে হাত বের করেই বুঝলাম
এটা সৌদি আরব। কারণ, এখানকার গরম বাতাস
আমি ভালোভাবেই চিনি।
আরো কিছুক্ষণ পর
৩য় জন বললঃ আমি জানালা হাত বের
করেই বুঝলাম এটা বাংলাদেশের ঢাকার গূল্লিস্থান !!
বাকি ২ জনঃ কিভাবে বুঝলেন?
৩য় জনঃ কারণ, জানালা দিয়ে হাত বের
করতেই আমার
হাত-ঘড়িটা কেউ মেরে দিছে


24

স্টিভ জবস ও বিল গেটসের মধ্যে কথা হচ্ছিল।
বিল গেটস: গতকাল একটু ব্যাংকে গিয়েছিলাম।
স্টিভ জবস: কেন?
বিল গেটস: একটা লোনের ব্যাপারে কথা বলতে।
স্টিভ জবস: তাই নাকি? তা কত টাকা
লোন দরকার তোমার?
বিল গেটস: আমার না। ব্যাংকের দরকার

 


25

আমেরিকাঃ মোবাইল -আমাদের
আবিষ্কার।
চায়নাঃ সিমকার্ড আমাদের আবিষ্কার।
জাপানঃ এস.এম.এস আমাদের আবিষ্কার।
ইন্ডিয়াঃ আউট গোইং লক আমাদের
আবিস্কার।
বাংলাদেশঃমিসকল আমাদের দেশের আবিষ্কার!


26

আবুল তার বউকে নিয়ে কফি-
শপে গেছে।
আবুলঃ কফিটা তাড়াতাড়ি শেষ
করো,
ঠান্ডা হয়ে যাচ্ছে।
বউঃ হোক, সমস্যা কি? .
আবুলঃ আরে,
মূল্য তালিকা দেখো। হট কফি- ২০ টাকা, কোল্ড
কফি- ৫০টাকা।
ঠান্ডা হয়ে গেলেই
অযথা ৩০
টাকাবাবাঃ যদি ফেল করিস তবে আমাকে তুই আর বাবা বলে ডাকবি না !
বলে দিলাম .. (রেজাল্ট বের হওয়ার পর)
বাবা : কিরে তোর রেজাল্ট কেমন হল ?
কিছু তো বললি না ↓ছেলেঃ আমি দুঃখিত, রফিক সাহে!
বেশি দিতে হবে


27

একটা আপেল দুই বন্ধু
ভাগাভাগি করে খাবে ।
১ম বন্ধু আপেল টা ভাগ করে বড় অংশ টুকু নিল
২য় বন্ধু : দোস্ত তুই বড় অংশ নিলি আর
আমাকে ছোট অংশ টা দিলি ?
১ম বন্ধু : তুই হলে কি করতি ?
২য় বন্ধু : আমি বড়
অংশটা তোকে দিতাম ।
১ম বন্ধু : তাইতো বড় অংশটা নিলাম


28

বিচারক : তুমি পকেট মারতে গিয়ে ধরা পড়েছে। তোমার দোষ স্বীকারে
আপত্তি আছে?
আসামি : আমি নিরপরাধ হুজুর।
ধরা পড়ার জন্য আমি দায়ী নই।
লোকটার পকেট এত ছোট ছিল যে, হাতটা টুকিয়ে

আর বের করতে পারি নাই…………………………


29

শীতের সকাল
শীতের সকালে দুই বন্ধুর
মাঝে কথা হচ্ছে:-
১ম বন্ধু: লতিফ দেখরে পুকুরে আগুন
ধরে গেছে!
২য় বন্ধু: কি ভাবে বুঝলি?
১ম বন্ধু: দেখ পুকুরের
পানি দিয়ে ধোয়া বের হচ্ছে।
২য় বন্ধু: আরে বোকা বুঝলি না ?
১ম বন্ধু: কি?
২য় বন্ধু: পুকুরের মাছ গুলো সিগারেট
খাচ্ছে!


30


31

এক পাগল এক চাইনিজকে জিজ্ঞেস করছে,
তুমি কি আমেরিকান??
চাইনিজঃনা…আমি চাইনিজ
পাগলঃ তুমি আমেরিকান না???
চাইনিজঃ না, আমি চাইনিজ
পাগলঃ মিথ্যা বলছ,তুমি অবশ্যই আমেরিকান
চাইনিজ লোকটি শেষে বিরক্ত হয়ে বলল হ্যাঁ বাবা।
আমি আমেরিকান। খুশি??
পাগলঃ চেহারা দেখে তো মনে হয় তুমি চাইনিজ


32

গির্জায় কনফেশন চলছে—
চুর: ফাদার, আমি একটি মুরগি চুরি করেছিলাম।
সেটা নিয়ে আপনি আমাকে পাপমুক্ত করবেন?
ফাদার: না, এভাবে হয়না, তুমি যার মুরগি তাকে ফেরত দিয়ে আসো।
চুর: ফেরত দেওয়ার চেষ্টা করেছিলাম কিন্তু মুরগির মালিক ফেরত নিতে চায় না।
ফাদার: সে ক্ষেত্রে তুমি পাপমুক্ত। কারণ তুমি মুরগির মালিককে
ফেরত দেওয়ার চেষ্টা করেছিলে।
মুরগিচোর খুশিমনে মুরগি নিয়ে বাড়ি চলে গেল।

ওদিকে পাদ্রি বাড়ি ফিরে দেখেন তাঁর মুরগিটি নেই


33

সুপারম্যান খ্যাত অভিনেতা ক্রিস্টোফার
রীভকে একবার প্রশ্ন করা হয়েছিল -সুপারম্যান আর জেন্টেলম্যান এর মধ্যে পার্থক্য কি?
তিনি গম্ভীর মুখে উত্তর দিলেন- সহজ পার্থক্য।
জেন্টেলম্যানরা আন্ডারঅয়্যার পরে প্যান্টের নিচে আর সুপারম্যান পরে ওপরে।


34

কিংবদন্তীমুষ্টিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলীকে প্লেনে উড়বার আগে সিট বেল্ট বাঁধার কথা মনে করিয়ে দিলেন বিমানবালা।
আলী অহংকারী গলায় উত্তর দিলেন-
সুপারম্যানের সিট বেল্ট বাধার প্রয়োজন হয়না।
কিন্তু সত্যিকার সুপারম্যানের প্লেনে চড়বারও
দরকার হয় না-বিমানবালা চটপট উত্তর দেয়।


35

স্বামী বিবেকানন্দের বাবা তার বৈঠকখানায় অনেকগুলি হুকো
রাখতেন যেন এক জনের পান করা হুকো মুখে দিয়ে অন্যের জাত না যায়।
একদিন বিবেকানন্দ সবগুলো হুকোয় একবার করে টান দিলেন।
এ তুমি কি করলে -ক্ষেপে গিয়ে উনার বাবা জানতে চাইলেন।
দেখলাম জাত যায় কিনা-বিবেকানন্দের উত্তর।


36

একবার এক মহিলা কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্য

কিছু পিঠা বানিয়ে নিয়ে যান।
কেমন লাগল পিঠা জানতে চাইলে কবি গুরু উত্তর দেন-
লৌহ কঠিন, প্রস্তর কঠিন, আর কঠিন ইষ্টক,
তাহার অধিক কঠিন কন্যা তোমার হাতের পিষ্টক।


37

কবি মাইকেল মধুসুদনের অর্থিক অনটনের সময় ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর উনাকে
টাকা পয়সা দিয়ে সাহায্য করতেন।
একদিন এক মাতাল ওনার কাছে সাহায্য চাইতে এলে বিদ্যাসাগর বললেন
-আমি কোন মাতালকে সাহায্য করি না।
কিন্তু আপনি যে মধুসুদনকে সাহায্য করেন তিনি ও

তো মদ খান -মাতালের উত্তর।
বিদ্যাসাগর উত্তর দেন -ঠিক আছে আমিও
তোমাকে মধুসুদনের মত সাহায্য করতে রাজী আছি তবে তুমি তার আগে
একটি মেঘনাথ বধ কাব্য লিখে আনো দেখি।


38

বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনস্টাইন এর মেধার তুলনায় চেহারা ছিল নিতান্তই সাদামাটা।

একবার এক সুন্দরী অভিনেত্রী প্রস্তাব দেন-চলুন আমরা বিয়ে করে ফেলি। তাহলে আমাদের সন্তানের চেহারা হবে আমার মত সুন্দর আর মেধা হবে আপনার মত প্রখর।
কিন্তুস্যার উইন্সটন চার্চিলের তর্ক হচ্ছিল নারী নেত্রী ন্যান্সি অ্যাস্টয়ের সাথে।

তর্ক একসময় রীতিমতো ঝগড়ার পর্যায়ে চলে যায়। গলা উচিয়ে ন্যান্সি বলেন

-তোমার সাথে বিয়ে হলে কফিতে বিষ মিশিয়ে আমি তোমাকে খুন করতাম।
চার্চিল উত্তর দেন- তোমার মত বউ হলে বিষ খেয়ে মরতে আমার কোনও
আপত্তি থাকত না।
যদি ঠিক এর উল্টোটা ঘটে তবে কি হবে-আইনস্টাইন নির্বিকার ভাবে উত্তর দেন।


39

একবার এক ছাত্র মার্ক টোয়েনের কাছে
এসে বলল-আমি ডাক্তারি পড়া ছেড়ে দিয়েছি
। এখন সাহিত্য চর্চার মধ্য দিয়ে মানুষের উপকার করতে চাই।
মার্ক টোয়েন উত্তর দিলেন-তুমি ডাক্তারী পড়া ছেড়ে
দিয়ে এমনিতেই মানবজাতির অনেক উপকার করেছ।

আর উপকার না করলেও চলবে………………….


40


41

মার্ক টোয়েন একবার উনার এক সাংবাদিক বন্ধুকে
বললেন বছর দশেক লেখালেখি করার পর বুঝতে পারলাম এ ব্যাপারে আমার কোনও প্রতিভা নেই।
তাহলে এটা বুঝবার পরও তুমি কেন লেখালেখি চালিযে যাচ্ছ ? -বন্ধু জানতে চায়।
মার্ক টোয়েন উত্তর দেন-কি করব, ততদিনে আমি রীতিমতো বিখ্যাত হয়ে গেছি যে।

সমাধীস্থলের চারদিকেল দেয়ালের জন্য মার্ক টোয়েনের কাছে চাঁদা চাইতে
গেলে তিনি উত্তর দেন-সমাধীস্থলের চারদিকে দেয়াল দেয়ার কোন প্রয়োজন দেখি না।
কারণ যারা ওখানে থাকে তাদের বাইরে বেরিয়ে আসার ক্ষমতা নেই। আর যারা বাইরে
থাকেন তাদের ওখানে যাবার কোন ইচ্ছে আছে বলে আমার মনে হয় না।


42

সমাধীস্থলের চারদিকেল দেয়ালের জন্য মার্ক
টোয়েনের কাছে চাঁদা চাইতে গেলে তিনি উত্তর
দেন-সমাধীস্থলের চারদিকে দেয়াল দেয়ার কোন প্রয়োজন দেখি না।
কারণ যারা ওখানে থাকে তাদের বাইরে বেরিয়ে আসার ক্ষমতা নেই।
আর যারা বাইরে
থাকেন তাদের ওখানে যাবার কোন
ইচ্ছে আছে বলে আমার মনে হয় না।


43

প্রশ্ন: আইন কেন একজন পুরুষকে একাধিক বিয়ে করতে দিতে চায় না?

উত্তর: কারণ একজনকে একটি অপরাধের শাস্তি মাত্র একবারই দেওয়া যায়।

১২. প্রশ্ন: ‘ফুটবলের রেফারির কি উচিত ঘুষ হিসেবে উপার্জিত টাকার ট্যাক্স পে করা?’

উত্তর: যদি রেফারি হয় সৎ ও নীতিবান


44

প্রশ্ন: রাত ১২:৩০ এ প্রেমিকের বাইকে করে বাসায় ফিরে এসে দেখলে মা রক্তচক্ষু আর ঝাড়ু নিয়ে দাড়িয়ে আছে।
তখন কি বলবে তুমি?

উত্তর: “এখনও ঘর পরিষ্কার করছ?”

১৪. প্রশ্ন: পৃথিবীর সবচেয়ে প্রচীন প্রাণী কোনটি?

উত্তর: জেব্রা। কারন এটি সাদা-কালো !


45

প্রশ্ন: খালাম্মা ডেকচির ঢাকনা খুইজ্জা পাইনা?
উত্তর: এক কাজ কর। “ডেকচির ঢাকনা” লেইখা গুগলে সার্চ দে।


46

ছোটাপ্পি, পাশের বাসার বাবুটার রক্তে ম্যালিরিয়ার ভাইরাস পাওয়া গেছে।
আমার ও তো হতে পারে?
উত্তর: ভয় পাস না গিট্টু। তিন দিন পর পর তোর
এন্টিভাইরাস নেট থেকে আপডেট করে দিবো।
তুই খালি প্রতি সপ্তাহে পুরা বডি স্ক্যান করবি।


47

প্রশ্ন: আ-হায়রে দোস্ত শার্টে চা পইড়া তো ভাইসা গেলো। এখন কি হবে?
উত্তর: খাড়া ফটোশপ CS100 দিয়া তোর শার্টের দাগ মুইছা দিতাছি।


48

ধরুন….আপনি একটি দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছেন।
এক পর্যায়ে আপনি দ্বিতীয় প্রতিযোগিকে ওভারটেক করলেন। আপনার অবস্থান কত?

উত্তর: যদি আপনি মনে করে থাকেন আপনার অবস্থান ‘প্রথম’।
তাহলে আপনার ধারনা ভুল। দ্বিতীয় প্রতিযোগিকে ওভারটেক করার পর…

আপনি তৃতীয় অবস্থান থেকে এখন রয়েছেন দ্বিতীয় অবস্থানে। প্রথম প্রতিযোগি প্রথম অবস্থানেই আছেন।


49

প্রশ্ন: যদি আপনি সর্বশেষ প্রতিযেগিকে ওভারটেক করেন, তখন আপনার অবস্থান……..কত?

উত্তর: যদি আপনার উত্তর হয়ে থাকে ”সর্বশেষ প্রতিযোগির ঠিক আগের অবস্থানে”
, তাহলে আপনি এবারও ভুল! আপনি-ই বলেন, সর্বশেষ প্রতিযোগিকে কিভাবে ওভারটেক করা সম্ভব
সেক্ষেত্রে আপনি নিজেই তো ছিলেন সর্বশেষ প্রতিযোগি!


50


51

প্রশ্ন: ১০০০ এর সাথে ৪০ যোগ করুন। যোগ করুন আরও ১০০০, তারপর আরও ৩০।
এবার যোগ করুন আরও ১০০০ এবং ২০। এরপর যোগ করুন আরও ১০০০ এবং ১০।
মোট কত হলো?

আপনার প্রাপ্ত যোগফল কি ৫০০০? সিওর?

সঠিক উত্তর ৪১০০। বিশ্বাস না হলে খাতা-কলমে যোগ করে দেখুন!


52

প্রশ্ন: একজন বোবা ব্যাক্তি একটি দোকানে গেছেন টুথব্রাশ কিনতে।
তিনি বার বার অভিনয় করে… দাঁত ব্রাশ করার ভঙ্গি করে দোকানী-কে
বোঝানোর চেষ্টা করলেন, তিনি কি চাচ্ছেন।
দোকানী সহজেই বিষয়টি বুঝলো এবং লোকটিকে একটি টুথব্রাশ দিয়ে দিল।

 

SEE MORE SMS

Romantic bangla love sms

Be the first to reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *