১৬টি কুফরি বাক্য যা আমরা নিয়মিত বলে থাকি

image_pdf

1

আল্লাহর সাথে হিল্লাও লাগে


2

তোর মুখে ফুল চন্দন পড়ুক। (ফুল চন্দন হিন্দুদের পুজা করার সামগ্রী)


3

কষ্ট করলে কেস্ট মেলে। (কেস্ট হিন্দু দেবীর নাম, তাকে পাবার জন্য কষ্ট করছেন?)


4

মহাভারত কি অশুদ্ধ হয়ে গেল? (মহাভারত একটি উপন্যাস, যা সবসময় অশুদ্ধ)


5

মোল্লার দৌড় মসজিদ পর্যন্ত। (এটি ইসলামের নামে কটুক্তি করা)


6

লক্ষী ছেলে, লক্ষী মেয়ে, লক্ষী স্ত্রী বলা। (হিন্দুদের দেব-দেবির নাম লক্ষী; তাই ইসলামে এটি হারাম)


7

কোনো ঔষধকে জীবন রক্ষাকারী বলা। জন্ম-মৃত্যু একমাত্র আল্লাহর হাতে


8

দুনিয়াতে কাউকে শাহেনশাহ বলা। (এর অর্থ রাজাদের রাজাধিরাজ)


9

নির্মল চরিত্র বোঝাতে ধোয়া তুলশি পাতা বলা।
এটি অনৈসলামিক পরিভাষা, যা হারাম


10

ইয়া খাজাবাবা, ইয়া গাউস, ইয়া কুতুব ইত্যাদি বলা। (এটি শিরক, ইসলামের সবচেয়ে বড় পাপ)


11

ইয়া আলি, ইয়া রাসুল (সাঃ) বলে ডাকা। (আল্লাহ ছাড়া পৃথিবীর কাউকে ডাকা শিরক)


12

বিসমিল্লায় গলদ বলা। (এটি সরাসরি কুফরি)


13

মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়া বলা। (কুফরি বাক্য, সাবধান!)


14

মধ্যযুগীয় বর্বরতা বলা। (মধ্যযুগ ছিল ইসলামের স্বর্ণযুগ)


15

মন ঠিক থাকলে পর্দা লাগে না। (ইসলাম ধ্বংসকারী মতবাদ)


16

নামাজ না পড়লেও ঈমান ঠিক আছে বলা। (ইসলাম থেকে বের করার মূলনীতি)

 

 

এগুলি অজ্ঞতার কারণে হয়ে থাকে।
হে মুসলিম উম্মাহ!
আসুন;
আমরা প্রথমে নিজে,
অত:পর নিজের পরিবারকে সচেতন করি।
তাদের মাঝে এইগুলো প্রচার করি –
আর কত দিন
nএই অজ্ঞতায় পড়ে থাকবো…?

Be the first to reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *