Doctor Bou – Part( 5 ) | ডাক্তার বউ – পার্ট( ৫ )

image_pdf

তুলিকে বুঝাতে হবে প্রিয় মানুষের একটু অবহেলা কেমন লাগে! অবশ্য তুলি অনেক বার ফোনে ট্রাই করেছে আমার সাথে কথা বলার জন্য কিন্তু আমি ফোন রিসিভ করিনি! এক সপ্তাহ পরে ,,,,,
একদিন অফিস থেকে বাসায় তুলির কথা খুব মনে হচ্ছে !
হাসপাতাল থেকে আসার পর একদিনও তুলির সাথে দেখা হয় নাই!
তুলিকে দেখতে খুব ইচ্ছে হচ্ছে! মন থেকে তুলির জন্য ছট ফট করছে! আসলে আমাদের মনটা খুবয় বিয়াদপ যেই মানুষগুলো সবচেয়ে বেশি অবহেলা করে সেই মানুষগুলোর কাছে বার বার ফিরে যেতে মন চাই! অনেক ভেবে চিন্তে সিদ্ধান্ত নিলাম তুলিকে ক্ষমা করে দিবো আসলে তুলিকে অনেক আগেই ক্ষমা করে দিছি! আমার যায়গায় কেউ হয়লে হয়তো ক্ষমা করতে পারতো কিনা জানি না! আমি তুলির ভালোবাসায় বড্ড বেশি দুর্বল হয়ে পরছি!

তুলির নাম্বারে ছোট্ট করে একটা মেসেজ দিলাম ,,, জান তোমাকে খুব মিস করতাছি আসবা কি এখন! আমি জানি তুলি এই মেসেজ দেখার পর তুলি ওদের বাসায় এক মুহূর্ত থাকবে না ! আমার কাছে ছোটে আসবে! বারবার ক্ষমা চাইবে আমার কাছে! ঘুম ধরেছে অনেক তাই একটু ঘুমানোর ধরকার! চোখের পাতাগুলো বন্ধ হয়ে আসছে! কখন ঘুমিয়ে পরছি জানি না! আমার পায়ের কাছে কারো কান্নার আওয়াজে ঘুম বাঙ্গলো !
তাকিয়ে দেখি তুলি কান্না করছে ,, তুলির চেহারা আগের থেকে অনেক পাল্টে গেছে , চোখের নিচে কালো দাগ পরে গেছে মনে হয় অনেক কান্না করছে আর ঠিক মতো ঘুমাই নি! আগের তুলির সাথে এখন কার তুলির কোন মিল নেই! আমি ওঠে দারালাম তুলির হাত ধরে আমার কাছে তুলে নিলাম ,, নিয়ে বল্লাম আবার এমন করবে!

:- কোন দিনই না তুমি যা বলবা তাই করবো! শুধু তপমার বুকে একটু ঠায় দিয়ো(তুলি)
:- চাকরি থেকে রিজাইন দিছো কেন?
:- আমি আর চাকরি করবো না! এখন থেকে পরিবারের লোকদের সময় দিবো!
(তুলি) :- চাইলেই চাকরি করা অবস্থায় পরিবারের লোকদের সময় দেওয়া যাবে !
:- আচ্ছা আমি আর এই ব্যাপারে কিছু বলতে চাই না! আমো চাকরি করবো না ব্যাস করবো না!
:- আচ্ছা আর কখনো বলবো না চাকরি করতে ! কিন্তু আমায় প্রতিদিন অনেক অাদর করতে হবে !
:- হ্যা আমার বাবুটাক আদর করার জন্যয় তো এসেছি!
:- একটু কাছে আসো না!
:- কাছেই তো এসেছি : আর একটু কাছে আসো না তুলি আমার আরো আমার অনেক কাছে আসলো!

তুলির কোমরে হাত দিয়ে তুলিকে আমার বুকের সাথে মিশেয়ে নিলাম! তুলি এখন আমার খিব কাছে তুলি নিঃশ্বাস আমি শিনতে পাচ্ছি ! আমি কোন কিছু বোঝার আগেই তুলির কোমল দুটি ঠোঁট আমার ঠোঁটের সাথ মিলে গেলো! আমার ধম বন্ধ হওয়া অবস্থা হয়ে গেছে তুলিকে ছারিয়ে দিলাম!
:- তুলি বল্লো ছারলা কেন!
:- আমার তো দম বন্ধ হয়ে মারতে বসেছিলাম বলার আগেই তুলির ঠোঁ আবার একত্রে হয়লো! আমিও কম কিসের তুলিকে শক্ত করে জরিয়ে ধরলাম! অনেক দিনের জমানো ভালোবাসা তুলিকে আজ ফিরত দিবো! আমি জানি তুলিও আজ তার জমানো ভালোবাসা এক সাথে সব ফিরত দিবে! দুজনে দুজন ভালোবাসার সাগরে হারিয়ে গেলাম……………………….!!!!!

_____________________সমাপ্ত___________________

[কেমন হলো বন্ধুরা গল্পটি ভালো লাগলে জানাবেন]

Doctor Bou | ডাক্তার বউ

Be the first to reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *